বখাটের শাস্তির দাবিতেসোনারগাঁওয়ে মানববন্ধন প্রশাসনের একাত্মতা

2012-11-18

logo-ittefaq

লেখক: সোনারগাঁও সংবাদদাতা  |  সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১২, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪১৯
লাঞ্ছনা সইতে না পেরে আত্মহত্যা
বখাটের লাঞ্ছনা ও অপমান সইতে না পেরে কলেজ ছাত্রী ফারহানা ইসলাম রিমির আত্মহত্যার ঘটনায় রবিবার সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবক বখাটে শামীমকে গ্রেফতার এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছেন।

এ সময় স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুল্লাহ আল কায়সার, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মনোজ কান্তি বড়াল, সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাগরিকা নাসরিন ও সোনারগাঁও উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কোহিনুর ইসলাম, মোগরাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আরিফ মাসুদ বাবু বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেন। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বখাটের কারণে একজন মেধাবী ছাত্রীর আত্মহননের পথ বেছে নেয়া কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না। দ্রুত বখাটে শামীমকে গ্রেফতার করে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। রিমির মতো আর কোন ছাত্রীকে যেন এভাবে জীবন দিতে না হয়, সেজন্য আমাদেরকে এখান থেকেই শিক্ষা নিতে হবে। শেষে সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অধ্যক্ষ আশরাফুজ্জামান অপু বখাটে যুবক শামীমের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেয়া পর্যন্ত তাদের এই আন্দোলন অব্যাহত থাকবে বলে ঘোষণা দেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের চরগোয়ালদী গ্রামে শনিবার দুপুরে আত্মহত্যার ঘটনাটি ঘটেছে। পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী জানায়, সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ২য় বর্ষের ছাত্রী ফারহানা ইসলাম রিমি (১৮) কলেজে আসার পথে মঙ্গলেরগাঁও বাজারে একই এলাকার মৃত নূর মোহাম্মদের ছেলে শামীম রাস্তায় গতিরোধ করে গায়ের ওড়না টেনে নিয়ে যায়। পরে রিমি বিষপানে আত্মহত্যা করে।

তথ্যসূত্র: ইত্তেফাক, ১৯ নভেম্বর ২০১২

Advertisements