নীলফামারীতে পাশবিক নির্যাতনের পর ছাত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা

kalerkantho-logo.gif
নীলফামারী প্রতিনিধি
নীলফামারীতে তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী শাহীনা আক্তারকে (১০) শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। জেলা সদরের চড়াইখোলা ইউনিয়নের সুজনপাড়া গ্রামে গত মঙ্গলবার রাতের এ ঘটনায় বুধবার সকালে তার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাকে পাশবিক নির্যাতনের পর হত্যা করা হয়েছে বলে পরিবার দাবি করেছে।শাহিনার বাবা ওই গ্রামের শুঁটকি ব্যবসায়ী আবদুল মান্নান ঝালাউ জানান, মঙ্গলবার বিকেলে শাহীনাসহ তিনি শুঁটকি নিয়ে বাড়ি থেকে আধা কিলোমিটার দূরে চড়াইখোলা বাজারে যান। শাকসবজি কিনে সন্ধ্যায় শাহীনাকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। বাজারের ব্যাগ বাড়ি পৌছে দিয়ে শাহীনা তাঁর কাছে যাওয়ার কথা বলে ফের বাড়ি থেকে বের হলে ওই রাতে আর তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। পরদিন বাড়ির অদূরে একটি জমিতে তার লাশ পাওয়া যায়। পূর্বশত্রুতার জের ধরে শাহীনাকে পাশবিক নির্যাতনের পর শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।


নীলফামারী সদর থানার ওসি জানান, পরনের পায়জামা খুলে গলায় পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে শাহীনাকে হত্যা করা হয়েছে। বুধবার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় শাহীনার বাবা আবদুল মান্নান ঝালাউ বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন।

তথ্যসূত্র: কালেরকণ্ঠ, ৬ ডিসেম্বর ২০১২

Advertisements